লন্ডনে ১২ ঘন্টার ভেতরে চারটি ছুরিকাঘাতের ঘটনা : স্টপ এন্ড সার্চে পুলিশের বিশেষ ক্ষমতা

ব্রিটবাংলা ডেস্ক : ইংল্যান্ড এন্ড ওয়েলসে নাইফ ক্রাইম প্রতিরোধে স্টপ এন্ড সার্চে বিশেষ ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে পুলিশকে। সন্দেহভাজন নাইফ ক্রাইম স্পটগুলোতে যথাযথ কারণ ছাড়াই পুলিশ যে কাউকে স্টপ করে সার্চ করতে পারবে। নাইফ ক্রাইম বা ছুরিকাঘাতের ঘটনা প্রতিরোধে হোম সেক্রেটারী সাজিদ জাভিদ পুলিশকে এই বিশেষ ক্ষমতা দিলেও ক্যাম্পেইনাররা মনে করছেন, তাতে বিশেষ কোনো উপকার হবে না। যদিও গত কয়েক বছর ধরে পুলিশের স্টপ এন্ড সার্চ নিয়ে বিতর্ক রয়েছে। অভিযোগ রয়েছে, কৃষ্ণাঙ্গরাই বেশি স্টপ এন্ড সার্চের শিকার হন। পুলিশ ইচ্ছে করেই কালো চামড়া দেখে স্টপ এন্ড সার্চ করে বেশি।
নতুন করে পুলিশকে স্টপ এন্ড সার্চের ক্ষমতা প্রদানের সুযোগ দেওয়া হয়েছে ইংল্যান্ড এবং ওয়েলসের সাতটি এলাকায়। লন্ডন, ওয়েস্ট মিডল্যান্ডস, মার্সিসাইড, সাউথ ইয়র্কশায়ার, ওয়েস্ট ইয়র্কশায়ার, সাউথ ওয়েলস এবং গ্রেটার ম্যানচেষ্টার। এসব এলাকায় নাইফ ক্রাইমের ঘটনা ষাট শতাংশের বেশি।
২০১৭-২০১৮ সালে ইংল্যান্ড এন্ড ওয়েলসে ছুরিকাঘাতে ২৮৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে লন্ডনেই ছুরিকাঘাতে মৃত্যু হয়েছে ১৩২ জন।
এদিকে শনিবার নর্থ লন্ডনে ধারাবাহিকভাবে চারটি ছুরিকাঘাতের ঘটনা ঘটেছে। এডমন্টন এলাকায় একজন মহিলা ও তিন পুরুষ ছুরিকাহত হন। তাদের চারজনের অবস্থাই ঝুঁকিপূর্ন।
এবার্ডিন রোডে সন্ধ্যা সাতটার দিকে ৪৫ বছর বয়সী এক মহিলা ছুরিকাহত হন। এ ঘটনার প্রায় চার ঘন্টা পরে প্রায় আধা মাইল দূরে পার্ক এভিনিউতে এক পুরুষ ছুরিকাহত হন। পার্ক এভিনিউ থেকে প্রায় এক মাইলের কম দূরত্বে সিলভার স্ট্রীটে সেভেন সিস্টার্স টিউব স্টেশনের সামনে শনিবার ভোররাত চারটার দিকে তৃতীয় ছুরিকাঘাতের ঘটনায় ২৩ বছর বয়সী এক তরুন আহত হন। চতুর্থ ঘটনা ঘটে রোববার সকাল ৯টা ৪৩ মিনিটের দিকে। সিলভার স্ট্রীট থেকে প্রায় এক মাইল দূরে ব্র্যাটেনহ্যাম রোডে এক পুরুষ ছুরিকাঘাত হন।
চারজনের অবস্থাই ঝুঁকিপূর্ন বলে পুলিশ জানিয়েছে। এরমধ্যে পুলিশ এক ব্যক্তিকে আটক করেছে। চারটি ঘটনার সঙ্গেই ধৃত ব্যক্তি সংশ্লিষ্ট বলে সন্দেহ করছে পুলিশ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Advertisement