সম্ভাব্য বাজার চিহ্নিত করতে সম্মত বাংলাদেশ ও মিশর

সহযোগিতার সম্ভাব্য ক্ষেত্রগুলোর কথা বিবেচনায় নিয়ে বাংলাদেশ এবং মিশর বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বৃদ্ধির জন্য সম্ভাব্য বাজার চিহ্নিত করতে সম্মত হয়েছে।আজ এখানে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বুধবার কায়রোতে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম এবং মিশরের বাণিজ্য ও শিল্পমন্ত্রী নেভিন গামিয়ার মধ্যে বৈঠকের সময় একথা বলা হয়।আফ্রিকাকে সহযোগিতার জন্য অত্যন্ত সম্ভাবনাময় অঞ্চল হিসেবে উল্লেখ করে শারিয়ার বলেন, বাংলাদেশ সরকার এই অঞ্চলে রপ্তানি বাড়াতে পদক্ষেপ নিযয়েছে। তিনি বলেন, ডি-৮-এর অধীনে উভয় দেশই সদস্য দেশগুলোর মধ্যে পারস্পরিক বাণিজ্যের সুবিধার্থে কাজ করছে।একই দিনে শাহরিয়ার কায়রোতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতেকে নিয়ে সুয়েজ খাল অর্থনৈতিক অঞ্চলের সিইও ইঞ্জিনিয়ার ইয়াহিয়া জাকির সঙ্গে তার কার্যালয়ে দেখা করেন।সিইও বাংলাদেশি উদ্যোক্তাদের সুয়েজ খাল অর্থনৈতিক অঞ্চলে বিনিয়োগের আমন্ত্রণ জানালে প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশি বিনিয়োগকারীরা সুয়েজ খালের উপযুক্ত এলাকায় বিনিয়োগ করতে পারে।মিশরের পর্যটন ও পুরাকীর্তি মন্ত্রী এডি খালেদ আল-আনানির সাথে পৃথক বৈঠকে শাহরিয়ার আলম ঢাকা-কায়রো সরাসরি বিমান যোগাযোগ চালু করায় আনন্দ প্রকাশ করেন।বৈঠকে আল-আনানি বলেন, তার সরকার মিশরের পর্যটন খাতে বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের শিক্ষা বিনিময়ের অফার করবে।সন্ধ্যায় শাহরিয়ার তার কার্যালয়ে মিশরের পরিকল্পনা ও অর্থনৈতিক উন্নয়ন মন্ত্রী ড. হালা হেলমি আলসাঈদের সাথে আরেকটি বৈঠক করেন। বৈঠকে প্রতিমন্ত্রী উল্লেখ করেন, বাংলাদেশ সরকার আফ্রিকার দেশগুলোর সঙ্গে সম্পর্ক উন্নয়নে অনেক গুরুত্ব দিচ্ছে।একই সন্ধ্যায় শাহরিয়ার আলম মিশরীয় চেম্বার অফ ইন্ডাস্ট্রি, পোশাক ও বস্ত্র শিল্পের প্রতিনিধি এবং মিশরীয় উদ্যোক্তাদের সাথেও বৈঠক করেন যেখানে তিনি ব্যবসা ও যৌথ সহযোগিতা প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে মিশরীয় বিনিয়োগকারীদের এবং ব্যবসায়ীদের বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানান।

Advertisement