ব্রিট বাংলা ডেস্ক :: সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি কি এমন কোনও বার্তা দিয়েছেন- তৈয়ার হো জাইয়ে, ওয়াক্ত আ রাহা?

সৌরভ এ ব্যাপারে একদম স্পিকটি নট। প্রকাশ্যে কোনও  কথাই বলছেন না। প্রধানমন্ত্রীর প্রতিক্রিয়াতো পাওয়াই যায়না। সূত্রের খবর, প্রধানমন্ত্রীর বার্তা পাওয়ার পর নাকি সৌরভ নিজেও নড়েচড়ে বসেছেন। খবর যে, ঘনিষ্ঠ মহলে মতামত নেওয়াও শুরু করেছেন সৌরভ।

ঘনিষ্ঠদের কাছ থেকে দুটি মত উঠে আসছে। একপক্ষ বলছেন, সৌরভের উচিত এখনই এই সুযোগ গ্রহণ করা। কারণ, যদি বিজেপি সৌরভকে মুখ্যমন্ত্রী মুখ করে নির্বাচনে লড়ে, তাহলে তরুণদের মধ্যে তার প্রতিক্রিয়া দুর্দান্ত ইতিবাচক হবে। মহিলা ভোটাররাও উৎসাহিত হবে।

সৌরভের মধ্যে যে লিডারশিপ কোয়ালিটি আছে, তাতে বাংলাকে নেতৃত্ব দিয়ে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারবেন।

দ্বিতীয় মতটি হল, এতে সৌরভের ভাবমূর্তি নষ্ট হবে। ক্রিকেটীয় যে ভাবমূর্তি সৌরভের আছে তা ধাক্কা খাবে।  সৌরভের ভক্তরাও দ্বিধাবিভক্ত হয়ে যেতে পারেন। তাই,  সৌরভের রাজনীতিতে যাওয়া উচিত নয়।

তবে, সৌরভ নিজে নাকি নতুন চ্যালেঞ্জ নিতে উৎসাহী। তাই তিনি এবার রাজনীতির পিচে খেলতে আগ্রহী। সৌরভকে মুখ্যমন্ত্রী মুখ হিসেবে তুলে ধরে তরুণ প্রজন্মের ভোট পেতে চাইছে তারা। সৌরভের জন্যে বিজেপি ২০১৩ সাল থেকে চেষ্টা করে যাচ্ছে। এবার তাদের সেই চেষ্টা সফল হলে ’২১ এর নির্বাচনে সেটাই হবে মাস্টারস্ট্রোক।

Advertisement