Moped gang ‘terrorised shops across London : লন্ডনে সাত মাসে মিলিয়ন পাউন্ডের চুরি-ছিনতাই

ব্রিটবাংলা রিপোর্ট : লন্ডন জুড়ে গত সাত মাসে মিলিয়ন পাউন্ডের ধারাবাহিক অপরাধ কায়েমে হাতুড়ি, ছুরি ও বন্দুক নিয়ে মোবাইল ফোনের দোকানে দোকানে একের পর এক সন্ত্রাসী তান্ডব চালিয়েছে একটি স্ম্যাশ-অ্যান্ড-গ্র্যাব মোপেড গ্যাং। বৃহস্পতিবার ব্ল্যাকফ্রায়ার্স ক্রাউন কোর্টের শুনানিতে এ তথ্য জানা যায়।

দুলকি চালের মোটর চালিত বাইকে চড়ে হেলমেট-পরিহিত ছিনতাইকারীরা অক্সফোর্ড স্ট্রিটে তিনটি মোবাইল দোকানে ১৭ বার হানা দেয়। তাছাড়া গত বছর শুধু মে মাসেই ইস্ট লন্ডনের ওয়ালথামস্টোর তিনটি দোকানে চারবার অভিযান চালায় এই অপরাধ চক্র। রাতের আঁধারে দোকান ভাঙচুর করে কয়েক মিনিটের মধ্যে হাজার হাজার পাউন্ডের হ্যান্ডসেট ছিনতাই করে তারা। অভিযানে নিরাপত্তা রক্ষীরা বাধা দিলে তাদেরকে চেয়ার ও হাতুড়ি দিয়ে নির্মমভাবে আঘাত করে দুষ্কৃতিকারীরা।

এক রাতে, আড়াইটার দিকে অক্সফোর্ড স্ট্রিটের একটি দোকান থেকে ২০ হাজার পাউন্ডের স্মার্টফোন ও ট্যাবলেট চুরি করার সময় ঘটনাস্থলে প্রত্যক্ষদর্শী একজনকে এক ছিনতাইকারী বন্দুক দিয়ে হুমকি দেয় বলে জানান প্রসিকিউটররা। উড গ্রীনে আরেক অভিযানে ছিনতাই করে পালিয়ে যাবার সময় এরা দুজন পুলিশকে মারাত্মক আঘাত করে পালিয়ে যায়।

গত সাত মাসে ছিনতাই কৃত ডিভাইসগুলি ইস্ট লন্ডনের বিভিন্ন দোকানে চোরাচালান করা হয়েছে, যেখান থেকে এগুলো বাজার দরের কম মূল্যে বিদেশে বিক্রি করা হতো বলে আদালতের শুনানিতে জানা যায়। চুরি করা কিছু ডিভাইস বাংলাদেশ ও পাকিস্তানে সনাক্ত করা হয়েছে বলেও জানান প্রসিকিউটর মাইকেল শও।

কয়েকজন ছিনতাইকারীকে সেপ্টেম্বরে ইস্ট হ্যাম থেকে আটক করে পুলিশ। বৃহস্পতিবার ব্ল্যাকফ্রায়ার্স ক্রাউন কোর্টের শুনানিতে এই অপরাধ কর্মে জড়িত থাকার অভিযোগ অস্বীকার করেছে ডাকাতির মামলায় গ্রেফতার হ্যাকনির ববি কেনেডি (২২) ও ক্রিস কোস্টি (১৯)। এর আগের শুনানিতে দোষী সাব্যস্ত হয়েছে ববির ভাই আলফি কেনেডি (২০), ডিলান কাস্টানো-লোপেজ (১৯) ও অ্যাডাম আতাল্লা (২১)।

গত অক্টোবরে দুই কেনেডি ও আতাল্লাকে গ্রেফতার করা হলে এই সহিংস অপরাধ শেষ হয়ে যায়। রাজধানীর চারপাশে দশ মাইল জুড়ে ধাওয়া করে পুলিশ তাদের গ্রেফতার করে।

 

Moped gang ‘terrorised shops across London

A moped gang armed with hammers, knives and guns terrorised mobile phone shops across London in a seven-month £1 million crime wave, a court heard.

The 17-strong group targeted Three stores, smashing their way in at night and snatching up thousands of pounds’ worth of handsets in minutes.

They used mopeds to get to and from the raids, attacking security guards who got in their way and injuring two police officers who tried to thwart one of the break-ins.

Blackfriars crown court heard one of the gang bragged about attacking a guard with a claw hammer when a raid turned violent, texting a friend: “Lol, had to lick him up with a hammer.”

They even carried out a “brazen” break-in on a Three store in Oxford Street, threatening members of the public with a gun as they helped themselves to £20,000-worth of phones, it is said.

The court heard three of the group were caught after a dramatic police chase through London, as a Met helicopter tracked a convoy of mopeds fleeing from the scene of the gang’s penultimate raid.

Prosecutor Michael Shaw said police recovered a series of “trophy” selfies taken by the alleged robbers before they went on the raids.

“They armed themselves with weapons, knives, hammers and guns, arriving on mopeds and using crash helmets as a disguise,” he said.

“They smashed their way into mobile phone stores owned by the Three network, smashing their way into the stores’ stockrooms, taking mobile phones which they sold to handlers in east London.”

The court heard the estimated value of the stolen phones together with damage caused to the shops is about £1 million.

Dylan Castano-Lopez, 19, of Rust Square, Camberwell, Alfie Kennedy, 20, of Arlington Avenue, Hoxton, and Adam Atallah, 21, of no fixed address, have pleaded guilty to conspiracy to burgle, admitting they belonged to the gang.

Kennedy’s brother, Bobby, 22, and Chris Costi, 19, of Linscott Close, Clapton, deny being part of a conspiracy, between May and November last year, and are currently on trial. Other alleged members of the organised crime group are due to stand trial at a later date.

On July 6, 2016, a security guard was subjected to “a good kicking” when he came across men in dark clothes and wearing crash helmets smashing their way into his shop in Walthamstow.

The court heard another guard was hit over the head with a chair and beaten with a hammer at a Three store in East Ham, and a third man who managed to barricade himself in a back office during a raid was told he would be shot if he dialled 999.

Police officers were also injured after catching two of the robbers “red-handed” on August 17 last year at a break in in Wood Green. “There’s a fight and the officers are dragged out through the broken window, receiving a number of lacerations,” said Mr Shaw.

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Advertisement