কে পাচ্ছেন এবার শান্তিতে নোবেল?

ব্রিট বাংলা ডেস্ক :: নরওয়ের অসলোতে শান্তিতে নোবেল পুরস্কার বিজয়ীর নাম ঘোষণা হবে কাল (শুক্রবার)। শান্তির নোবেলের জন্য এ বছর মনোনয়ন পেয়েছে ২২৩ জন এবং ৭৮টি প্রতিষ্ঠান। পুরস্কার ঘিরে আগে থেকেই শুরু হয়েছে ফিসফাঁস।

নরওয়ের অসলোতে শান্তিতে নোবেল পুরস্কার বিজয়ীর নাম ঘোষণা হবে কাল (শুক্রবার)। শান্তির নোবেলের জন্য এ বছর মনোনয়ন পেয়েছে ২২৩ জন এবং ৭৮টি প্রতিষ্ঠান। পুরস্কার ঘিরে আগে থেকেই শুরু হয়েছে ফিসফাঁস।

সম্ভাব্য বিজয়ী হিসেবে যাদের নাম বাতাসে ভেসে ভেড়াচ্ছে তাদের নিয়েই এক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে টাইম ম্যাগাজিন।

গ্রেটা থানবার্গ : ‘ফ্রাইডে ফর ফিউচার’ নামে জলবায়ু পরিবর্তন ঠেকাতে বিশ্বব্যাপী আন্দোলন গড়ে তুলে আলোচিত মুখ ১৬ বছরের অগ্নিকন্যা গ্রেটা থানবার্গ। বিশ্বখ্যাত জুয়াড়ি প্রতিষ্ঠান ল্যাডব্রোকেস বলছে, সবাই গ্রেটার নামেই বাজি ধরছেন।

চলতি বছর অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের সর্বোচ্চ সম্মাননা এবং সুইডেনের বিকল্প নোবেলখ্যাত ‘রাইট লাইভলিহুড অ্যাওয়ার্ড’ পেয়েছে সে। স্টকহোম ইন্টারন্যাশনাল পিস রিসার্চ ইন্সটিটিউটের পরিচালক ডান স্মিত বলেন, জলবায়ু নিয়ে গ্রেটা যা করেছে, তার সঙ্গে শান্তি ও নিরাপত্তার বিষয়টি ঘনিষ্ঠভাবে জড়িত।

আবি আহমেদ : শান্তিতে নোবেলের জন্য ইথিওপিয়ার প্রধানমন্ত্রী আহমেদের (৪৩) নামও শোনা যাচ্ছে। চলতি বছর তার প্রচেষ্টাতেই ইরিত্রিয়ার সঙ্গে ইথিওপিয়ার পুরনো বৈরিতার অবসান ঘটেছে। দুটি দেশ ও জাতিকে এক সুতোয় গাঁথার জন্য আবি এবার নোবেল পেতেই পারেন।

১৯৯৮ সালে শুরু হওয়া সীমান্ত যুদ্ধে দু’দেশের প্রায় ৭০ হাজার মানুষ নিহত হন। ২০০০ সালে শান্তিচুক্তি হলেও উত্তেজনা বহাল ছিল।

জাসিন্দা আরদার্ন : সহানুভূতি, সহমর্মিতা ও শক্তিমত্তার প্রতীক নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্দা আরদার্ন (৩৮)। মার্চে ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে সন্ত্রাসী হামলায় ৫১ মুসল্লি নিহত হন। শোকে বিহ্বল মুসলিমদের পাশে এসে দাঁড়ান আরদার্ন। সন্ত্রাসী হামলা ও সন্ত্রাসীর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখেন।

সম্প্রীতি স্থাপনের নজির গড়ে শান্তির নোবেল তিনি পেতেই পারেন।

রাওনি মেতুকটায়ার : আমাজন বন রক্ষায় জীবনের পুরো সময় ব্যয় করেছেন ৮৯ বছর বয়সী এ আদিবাসী নেতা। আগস্টে বিশ্বনেতাদের সঙ্গে আমাজন নিয়ে আলোচনার জন্য জি-৭ সম্মেলনে যোগ দেন কায়াপো জনগোষ্ঠীর এ নেতা।

রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডারস : সারা বিশ্বে গণমাধ্যমের স্বাধীনতা ও বাকস্বাধীনতা রক্ষায় কাজ করছে সংস্থাটি। ধারণা করা হচ্ছে, প্যারিসভিত্তিক এ সংস্থাটি এবার নোবেল পেতে পারে।

কমিটি টু প্রটেক্ট জার্নালিস্ট : সাংবাদিকদের নিয়ে কাজ করা আরেকটি আন্তর্জাতিক সংগঠন কমিটি টু প্রটেক্ট জার্নালিস্ট। নিউইয়র্কভিত্তিক এ সংগঠনটি ১৯৮১ সাল থেকে সাংবাদিকদের রক্ষায় কাজ করছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Advertisement