লন্ডন স্পোর্টিফের প্রথম অ্যাওয়ার্ড ও কিট লাঞ্চিং অনুষ্ঠিত

নতুন বছর ২০১৮ সালে ব্রিটেনের জাতীয় ক্রিকেট লীগ (এনসিএল), ঘরোয়ালীগ মিডলসেক্স এবং সেটার ডে লীগ খেলবে লন্ডনে বাংলাদেশীদের দ্বারা পরিচালিত ক্রিকেট ক্লাব লন্ডন স্পোর্টিফ। গত ১৭ ডিসেম্বর রবিবার ইস্ট লন্ডনে আয়োজিত ক্লাবের প্রথম অ্যাওয়ার্ড ও কিট লাঞ্চিং সিরোমনিতে এসব তথ্য জানান ক্লাব কর্মকর্তারা।

হোয়াইটচ্যাপলের লন্ডন এন্টারপ্রাইজ একাডেমীতে বর্ণ্যঢ্য আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয় অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠান। এতে যোগ দেন কমিউনিটির বিভিন্ন শ্রেনী পেশার বিশিষ্টজন। অনুষ্ঠানে ক্লাবের খেলোয়ার ও কর্মকর্তাদের হাতে তুলে দেওয়া হয় সাফল্যের স্মারক। বিভিন্ন ক্যাটাগরিত দেওয়া হয় ৩৫টি অ্যাওয়ার্ড।


সন্ধ্যা ৬টায় ক্লাবের বার্ষিক সাধারন সভা শেষে সাড়ে ৭টায় শুরু হয় অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানের মূল কার্যক্রম। এতে শুরুতে সকলকে স্বাগত জানিয়ে বক্তব্য রাখেন লন্ডন স্পোর্টিফের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম খলিল। তিনি অনুষ্ঠানের অতিথিদের সাথে নিয়ে উন্মোচন করেন লন্ডন স্পোর্টিফের ২০১৭ সালের নজকাড়া জার্সি।


কমিউনিটি এক্টিভিস্ট মেঘনা মিনারা উদ্দিন ও ক্লাব ট্রেজারার মুহাম্মদ সাব্বির ইসলামের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের নির্বাহী মেয়র জন বিগস, স্পিকার কাউন্সিলার সাবিনা আক্তার, লন্ডন বাংলা প্রেসক্লাবের প্রেসিডেন্ট সৈয়দ নাহাস পাশা, বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের এডিশনাল সেক্রেটারী মুহাম্মদ নুরুজ্জামান, লন্ডন এন্টারপ্রাইজ একাডেমীর প্রিন্সিপাল আশিদ আলী, সাবেক মেয়র মতিন উজ জামান, সাবেক কাউন্সিলার আব্দাল উল্ল্যাহ, অভিনেতা স্বাধীন খসরু, ব্যারিস্টার নাজির আহমেদ, সাপ্তাহিক দেশ সম্পাদক তাইছির মাহমুদ, সাপ্তাহিক ইউরো বাংলা সম্পাদক আব্দুল মুনিম জাহেদী ক্যারল, অনলাইন টিভি এলবি২৪ এর ফাউন্ডার শাহ ইউসুফ, চ্যানেল এস‘র জনপ্রিয় প্রেজেন্টার শায়েখ শওদাগর, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও কমিউনিটি নেতা নাছিম আহমদ চৌধুরী, ব্যবসায়ী মুহাম্মদ আব্দুল গফফার, বিসিএ‘র সাবেক প্রেস এন্ড পাবলিকেশনস সেক্রেটারী আনিছ চৌধুরী, ব্যবসায়ী জাহাঙ্গির আলম, মিডলসেক্স কমিউনিটি লীগের চেয়ারম্যান সাজিদ পাটেল, ক্যাপিটাল কিডসের কর্মকর্তা ও লন্ডন টাইগার্স ক্রিকেট ক্লাবের প্রেসিডেন্ট শহিদুল আলম রতন, ব্রিটিশ বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্সের ইন্টারন্যাশনাল সেক্রেটারী আবুল হায়াত নুরুজ্জামান, হেমলেট ট্রেনিং সেন্টারের পরিচালক জামাল আহমদ, প্রোপার্টি ব্যবসায়ী শুয়েব মুমিনসহ আরো অনেকে।


প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র জন বিগস বলেন, কমিউনিটির তরুন ও যুবকদের সুপথে পরিচালিত করতে এবং তাদের খেলাধুলায় ক্যারিয়ার গঠন করতে লন্ডন স্পোর্টিফ গুরুত্বপূর্ন অবদান রাখছে। টাওয়ার হ্যামলেটসে ক্রিকেটের উন্নয়নে, তিনি ভবিষ্যতে সর্বাত্মক সহযোগিতার আহবান জানান।

অনুষ্ঠানে ক্লাব কর্মকর্তাদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, ক্লাবের ভাইস প্রেসিডেন্ট জাকির আহমদ, সেক্রেটারী মুহিবুল আলম, ক্লাব ম্যানেজার কালিম উদ্দিন ও প্রেস এন্ড পাবলিকেশনস সেক্রেটারী শুয়েব আহমদ।

অনুষ্ঠানে মোস্ট ইন্সপায়রেশনাল পার্সন অব দ্যা ইয়ার অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয় ক্লাব প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম খলিলকে, বেস্ট অলরাউন্ডার টানেল মিয়া, টপ উইকেট টেকার ক্লাব সেক্রেটারী মুহিবুল আলম, টপ রান স্কোরার অব দ্যা ইয়ার মুশায়েকুর রহমান ও প্লেয়ার অব দ্যা ইয়ার হন ভাইস প্রেসিডেন্ট জাকির আহমদ।

এছাড়াও বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে অ্যাওয়ার্ড পান, পাভেল চৌধুরী, জাহেদুর রহমান, শাহেদ খান, ফয়সল আহমদ, অফজাল আহমদ, জুনাক মির্জা, শাহ সেলিম, মুহাম্মদ নকিব, আনিসুজ্জামান নিপু, আজহারুল ইসলাম আদনান ও শাহিনুর রহমান।
পরে স্থানীয় শিল্পিদের অংশগ্রহনে অনুষ্ঠিত হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক পরিবেশনা। এতে গান পরিবেশন করেন বিলেতের জনপ্রিয় শিল্পী সুমন শরিফ, সৈয়দা নাছিমা কুইন, রবিন্দ্র সঙ্গিত শিল্পী আছমা বেগম রিতা ও শায়েখ শওদাগর।
লন্ডন স্পোর্টিফের ২০১৭ সালের জার্সি স্পন্সর করে- প্রটো মটর লিমিটেড, ইউনাইটেড কার, অক্সিজেন মেন্সওয়্যার, টু ওয়ান টু , জে ফোর সিকিউরিটি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Advertisement