বিশ্বজুড়ে ‘পরিবেশ বাঁচাও’ বিক্ষোভ

ব্রিট বাংলা ডেস্ক :: পরিবেশ বাঁচানোর দাবি নিয়ে বিশ্বজুড়ে ‘ফ্রাইডেস ফর ফিউচার’ আন্দোলন শুরু করেছে স্কুলশিক্ষার্থীরা। তাদের সঙ্গে যোগ দিচ্ছে আরও নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ।

জলবায়ু পরিবর্তন এবং পরিবেষ দূষণের বিরুদ্ধে শুক্রবার এশিয়ার দেশগুলো থেকে শুরু করে অস্ট্রেলিয়া, ইউরোপসহ আফ্রিকা এবং যুক্তরাষ্ট্রেও জরুরি ব্যবস্থার দাবিতে পদযাত্রা এবং ধর্মঘট পালনের কর্মসূচি নিয়েছে লাখ লাখ মানুষ।

এ আন্দোলনে অস্ট্রেলিয়াজুড়ে ৩ লাখ মানুষ বিক্ষোভ-সমাবেশ করেছেন বলে জানিয়েছেন আয়োজকরা। দেশজুড়ে ১১০টি শহরে বিক্ষোভ হচ্ছে। সরকারের কাছে ২০৩০ সাল নাগাদ পরিবেশ কার্বন দূষণ মুক্ত করার দাবি জানাচ্ছে তারা। লন্ডনের রাস্তায়ও নেমেছে লাখো মানুষ। দেশজুড়ে বিভিন্ন জায়গায় তরুণ ও শিশুদের ১৫০টিরও বেশি বিক্ষোভ সংঘটিত হচ্ছে।

আরও শত শত আন্দোলনকর্মী তাদের সঙ্গে যোগ দেওয়ার অপেক্ষায় আছে। আন্দোলনে এরই মধ্যে শামিল হওয়াদের মধ্যে রয়েছেন ডাক্তার এবং চিকিৎসাকর্মীরাও। কারণ, তাদের মতে, জলবায়ু সংকটের সঙ্গে স্বাস্থ্য সমস্যাও জড়িত।

তীব্র তাপপ্রবাহ থেকে শুরু করে বন্যা, খাদ্য স্বল্পতা এবং বিপর্যয়কর ঘূর্ণিঝড় সবকিছুরই প্রভাব পড়ে জনস্বাস্থ্যে এবং এ পরিস্থিতি দিন দিনই খারাপের দিকে যাচ্ছে।

সুইডেনের গ্রের্টা থুনবের্গ নামের ১৫ বছর বয়সের এক স্কুলছাত্রী এ আন্দোলনের সূত্রপাত করেছিল। স্কুলের আগে পরিবেশ এই মূলনীতি নিয়ে শুরু হওয়া এ আন্দোলন নানা দেশের গন্ডি পেরিয়ে বিশ্বজুড়ে ব্যাপ্তি লাভ করেছে।

শুক্রবার বিশ্বব্যাপী ১৫০টি দেশের শিক্ষার্থীরা স্কুল ছেড়ে পরিবেশের জন্য রাজপথে নেমে আসার কর্মসূচি নিয়েছে। দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগর অঞ্চলের সলোমন দ্বীপপুঞ্জ জলবায়ু পরিবর্তনে সবচেয়ে ক্ষতিকর প্রভাবের শিকার হচ্ছে। সমুদ্রস্তর এবং ঝড়ের প্রকোপ বেড়ে সেখানে ঘরছাড়া হচ্ছে অনেক মানুষ।

তাই সলোমন দ্বীপপুঞ্জেও এদিন দেখা গেছে জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে আন্দোলন। শহরের রাস্তায় বিক্ষোভ হরহামেশাই দেখা যায়। কিন্তু সলোমন দ্বীপপুঞ্জে বাসিন্দারা বিক্ষোভ করেছে প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকেও।

মাভারো দ্বীপের সৈকতে তরুণদের বিক্ষোভ করতে দেখা গেছে। অনদিকে, নাইজেরিয়া যেখানে জলবায়ু পরিবর্তন ক্রমেই হুমকি হয়ে উঠছে সেখানেও বিভিন্ন শহরে দেখা গেছে বিক্ষোভ। রাজধানী আবুজায় বিক্ষোভ-ধর্মঘট করেছে শত শত মানুষ। তাদের বেশিভাগেরই পরণে ছিল সবুজ অ্যাকশন এইড টি-শার্ট। একই ধরনের বিক্ষোভ হয়েছে কেনিয়াতেও।

এর আগে মার্চে বিশ্বের একশ’টিরও বেশি দেশের বিভিন্ন শহরে এ আন্দোলনে রাস্তায় নেমেছিল স্কুলশিক্ষার্থীরা। এবারের আন্দোলন কর্মসূচি পালিত হচ্ছে আরও ব্যাপক পরিসরে। সিডনি থেকে সিউল, ম্যানিলা থেকে মুম্বাইয়ে শিশু-কিশোররা পরিবেশ বাঁচানোর দাবি নিয়ে স্কুল ছেড়ে রাস্তায় নেমে এসে মিছিল করেছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Advertisement