সুন্দরবন সংহতিওনবায়ন যোগ্য জ্বালানি বিষয়ক বার্লিন কনভেনশন

আনসার আহমেদ উল্লাহ: জার্মানির বার্লিনে অনুষ্ঠিত সুন্দরবন সংহতি ও নবায়নযোগ্য জ্বালানি বিষয়ক ইউরোপিয় কনভেনশনের ২০ আগষ্ট শেষ অধিবেশনে অংশগ্রহণকারী দেশসমূহকে নিয়ে তেল গ্যাস বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির ইউরোপিয় একশন গ্রুপ গঠন করা হয়েছে।

কনভেনশনে ইউরোপিয় একশন গ্রুপের সমন্বয়ক নির্বাচিত হন মোস্তফা ফারুক।

দুইদিনব্যাপী অনুষ্ঠিত এই কনভেনশনে জার্মানি, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, ইটালি, নেদারল্যান্ডস, নরওয়ে ও সুইডেন থেকে ৮০ জন প্রতিনিধি অংশ নেন।

বর্লিন কনভেনশনের সমাপ্তি অধিবেশনে বাংলাদেশের তেল গ্যাস রক্ষা জাতীয় কমিটির সদস্য সচিব প্রফেসর আনু মুহাম্মদ বলেন, রামপাল প্রকল্প কেবল সুন্দরবন ধ্বংস করবে না তা বাংলাদেশ ভারতের সম্পর্কের মধ্যে একটা স্থায়ী ক্ষত সৃষ্টি করবে। তিনি জ্বালানিসহ জনসম্পদের উপর জনগণের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠার কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশে নদী নালা, খাল বিল, মাঠ, ঘাট প্রান্তর সব দখল হয়ে যাচ্ছে।

তিনি এসব লুণ্ঠনের বিরুদ্ধে মানুষকে রুখে দাড়ানোর আহবান জানান। কনভেনশনে তেল গ্যাস রক্ষা জাতীয় কমিটি ও বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির নেতা রুহিন হোসেন প্রিন্স ও গণসংহতি আন্দোলনের নেতা জোনায়েদ সাকি বক্তব্য রাখেন।

কনভেনশনের এই অধিবেশনে বার্লিন ঘোষণা উত্থাপন করেন দেবাশীষ সরকার।

অধিবেশনে বক্তব্য রাখেন, জার্মানির বাবুল সৈয়দ । যুক্তরাজ্যের ডা. মুখলিছুর রহমান, ড. আখতার সোবহান মাসরুর, ডা. রফিকুল হাসান, গোলাম কবির, ডা. সেলিম ভূইয়া ও ডা. সাহিদা সুলতানা।

ইটালির শিপলু আহাত শামুল, ফ্রান্সের নিলয় সূত্রধর সুমন, সুইডেনের বসিত চৌধুরী, নরওয়ের আশরাফুল হক আবির ও নেদারল্যান্ডেসের অনুপম সৈকত শান্ত প্রমুখ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Advertisement